• রবিবার ২৮শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    শিশু মাইনুদ্দিনও না ফেরার দেশে, মৃত বেড়ে ১৪

    অনলাইন ডেস্ক | ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৩:০৬ অপরাহ্ণ

    শিশু মাইনুদ্দিনও না ফেরার দেশে, মৃত বেড়ে ১৪

    নারায়ণগঞ্জ শহরের বায়তুস সালাত জামে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গিয়ে বিস্ফোরণে দগ্ধ আরেক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম মাইনুদ্দিন

    শিশু মাইনুদ্দিনও না ফেরার দেশে, মৃত বেড়ে ১৪

    ঢামেক হাসপাতালে এক স্বজনের আহাজারি। ছবি-সংগৃহীত
    নারায়ণগঞ্জ শহরের বায়তুস সালাত জামে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গিয়ে বিস্ফোরণে দগ্ধ আরেক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম মাইনুদ্দিন (১২)।

    শনিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

    শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল যুগান্তরকে বলেন, দুপুরে মাইনুদ্দিন নামে আরও এক শিশু মারা গেছেন।

    এর আগে অগ্নিদগ্ধ হয়ে গতকাল রাতে জুবায়ের নামে সাত বছরের এক শিশু মারা যায়।

    বিস্ফোরণের ঘটনায় এ পর্যন্ত এই দুই শিশু ও মুয়াজ্জিনসহ মোট ১৪ জনের মৃত্যু হলো। এছাড়া দগ্ধ আরও ২৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

    গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক মুসল্লি দগ্ধ হন।

    দগ্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৭ জনকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের মধ্যে ১৩ জনের মৃত্যু হলো।

    বিস্ফোরণে মসজিদের ছয়টি এসি পুড়ে গেছে। জানালার কাচ উড়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

    (১২)।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৩:০৬ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

    shikkhasangbad24.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০ 
    advertisement

    সম্পাদক ও প্রকাশক : জাকির হোসেন রিয়াজ

    সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বাড়ি# ১, রোড# ৫, সেক্টর# ৬, উত্তরা, ঢাকা

    ©- 2021 shikkhasangbad24.com all right reserved