• শুক্রবার ৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    মাদারীপুরে পারিবারিক কলহের শিকার অগ্নিদগ্ধ শিশু মিমকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরন

    অনলাইন ডেস্ক | ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:৩৫ অপরাহ্ণ

    মাদারীপুরে পারিবারিক কলহের শিকার অগ্নিদগ্ধ শিশু মিমকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরন

    মাদারীপুরে পারিবারিক কলহের জেরে অগ্নিদগ্ধ ৬ বছরের শিশু মিমকে সোমবার আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করা হয়েছে। রবিবার ভোররাতে সদর উপজেলার রাস্তি ইউনিয়নের পূর্ব হাজরাপুর গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে বসতঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় শিশু মিমের পিঠ সম্পূর্ণ ঝলসে যায়। প্রথমে তাকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

    শিশুটির অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করা হয়েছে। মিমের মা সম্পা আক্তার অগ্নিসংযোগের অভিযোগ করেছেন তার শ্বশুর রাজ্জাক শেখ-এর বিরুদ্ধে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার রাস্তি ইউনিয়নের পূর্ব হাজরাপুর গ্রামে রাজ্জাক শেখ এর ছেলে আসলাম শেখ ৬ বছর আগে মালয়েশিয়ায় চলে যায়। এরপর থেকে রাজ্জাক শেখের সাথে পুত্রবধূ সম্পা আক্তারের বিরোধ শুরু হয়। সম্পার শশুর তাকে বাড়ি থেকে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য ক্রমাগত চাপ দিতে থাকে। সম্পা ছেলে-মেয়েদের নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যেতে অস্বীকৃতি জানায়। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে শ্বশুর ও পুত্রবধূর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। শনিবার বিকেলে রাজ্জাক শেখের মেয়ে রুনা বেগম বাড়িতে মিস্ত্রী নিয়ে আসে ভাইয়ের স্ত্রী ও ছেলে-মেয়েদের জন্য ঘর তুলে দিতে। এতে বাধা দেয় রাজ্জাক শেখ।

    এ নিয়ে বিকেল তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। রবিবার ভোররাতে হঠাৎ সম্পার ঘরে আগুন দেখে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে এবং আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ সময় শিশু মিম আক্তার আগুনে ঝলসে যায়। রবিবার সকালে শিশুটিকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সোমবার বেলা ১১ টার দিক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করা হয়েছে।

    পুত্রবধু সম্পা আক্তার বলেন, “অনেকদিন ধরে আমার শ্বশুর আমাদের বাড়ি থেকে চলে যেতে বলে। বাড়ি থেকে চলে না গেলে আগুন দিয়ে ঘর পুড়িয়ে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিলো। শনিবার বিকেলে আমার ননদ রুনা মিস্ত্রি নিয়ে আসে বাড়িতে ঘর তোলার জন্য। এ নিয়ে শশুর আমাকে ও আমার ননদকে গালিগালাজ করে। রাত ৩টার দিকে আমার ঘরের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। আমার চিৎকারে আশপাশের মানুষ এসে আমাদের ছেলে-মেয়েকে উদ্ধার করে। আমার মেয়েটার পিঠ আগুনে সম্পূর্ন পুড়ে গেছে।” অগ্নিসংযোগের ব্যাপারে আহত মিমের দাদী বলেন, “আমার পুত্রবধূর বসতঘরে আগুন দেয়ার ঘটনার ব্যাপারে আমরা কিছুই জানি না। আমরা কি আমাদের পুত্রবধূ, নাতি-নাতনিদের ঘরে আগুন দিতে পারি?

    রাস্তি ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার গোলাম মাওলা বলেন, “পারিবারিক দ্বন্দ্ব চলে আসছিল শশুর ও পুত্রবধুর মধ্যে। এ ঘটনায় শশুর, শাশুড়ী ও পুত্রবধুকে নিয়ে আমরা শতাধিকবার বসে সালিশ করেছি। শশুরকে বহুবার বলেছি। এক পর্যায়ে আমি এসে ঘর তুলে দেয়ার ব্যবস্থা করি। আগুন দেয়ার ঘটনাটি খুব দুঃখ জনক।

    মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: নুরুল ইসলাম বলেন, যে শিশুটি আগুনে পুড়ে গেছে তাকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হয়। আজ (সোমবার) সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করা হয়েছে।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ১০:৩৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

    shikkhasangbad24.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১ 
    advertisement

    সম্পাদক ও প্রকাশক : জাকির হোসেন রিয়াজ

    সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বাড়ি# ১, রোড# ৫, সেক্টর# ৬, উত্তরা, ঢাকা

    ©- 2021 shikkhasangbad24.com all right reserved