• সোমবার ২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    ছেলে-মেয়ের গলায় ছুরি চালিয়ে বাবার আত্মহত্যার চেষ্টা, মেয়ের মৃত্যু

    অনলাইন ডেস্ক | ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:৪৬ অপরাহ্ণ

    ছেলে-মেয়ের গলায় ছুরি চালিয়ে বাবার আত্মহত্যার চেষ্টা, মেয়ের মৃত্যু

    রাজধানীর হাজারীবাগের বটতলা এলাকায় ছেলে-মেয়েকে ছুরিকাঘাতে গুরতর জখম করে পরে বাবা নিজেই গলাকেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় ৭ বছরের মেয়ে রোজা মারা গেছে। আজ বুধবার বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর হাজারীবাগে এ ঘটনা ঘটে।

    রোজার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত ছেলে রিজন (১৪) এবং বাবা জাবেদকে (৪০) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তাদের অবস্থাও সংকটাপন্ন।

    রিজনের চাচা মেহেদি হাসান জানান, হাজারিবাগের বটতলা এলাকায় তাদের টিনসেড দুইতলা ভবন ছিল। উপরের তলায় তারা থাকতেন আর নিচ তলায় তাদের রেডিমেড পোশাকের গার্মেন্ট ছিল।

    জাবেদের স্ত্রী রুমা আক্তার বলেন, ঘটনার সময় আমি নিচ তলায় ছিলাম। হঠাৎ উপরে কান্নার আওয়াজ শুনতে পেয়ে দৌঁড়ে এসে দেখি তিনজনের গলায় মারাত্মক জখম অবস্থায় মেজেতে শুয়ে আছে।

    চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাদের তিন জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে এলে রোজা (৭) নামের শিশুটিকে মারা যায়। বাবা ও ছেলে গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন।

    ঢাকা মেডিক্যালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তাদের হাসপাতালে আনা হলে মেয়ে শিশুটিকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বাবা জাভেদ ও ছেলে রিজনের গলায় ধারালো ছুরির আঘাত রয়েছে।

    হাজারীবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজিদুর রহমান জানান, হাসপাতাল থেকে বিষয়টি জানতে পেরে সেখানে একটি দল পাঠিয়েছি। বিস্তারিত পরে জানা যাবে।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ১০:৪৬ অপরাহ্ণ | বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

    shikkhasangbad24.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১ 
    advertisement

    সম্পাদক ও প্রকাশক : জাকির হোসেন রিয়াজ

    সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বাড়ি# ১, রোড# ৫, সেক্টর# ৬, উত্তরা, ঢাকা

    ©- 2021 shikkhasangbad24.com all right reserved